Saturday , 28 November 2020
[cvct-advance id=20554]

Story

১ দিনের শিশুকন্যাকে ফেলে গেল বাবা-মা, কান্না শুনে আগলে রাখল রাস্তার কুকুর

একবিংশ শতাব্দিতে দাঁড়িয়েও কন্যা সন্তানের প্রতি অনীহার ছবিটা যেন বদলাচ্ছে না। চতুর্থীর সন্ধে, দুর্গাপুজোর শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি তখন তুঙ্গে। আর এমনই একটা দিনে রাস্তায় পড়ে কাঁদছে সদ্যোজাত। তাকে আগলে রেখেছে রাস্তার কিছু কুকুর। এক নেটিজেন বাচ্চাটির ছবি-সহ গোটা ঘটনাটি সোশ্যাল সাইটে পোস্ট করেছেন। তিনি লিখছেন, “সন্ধে ৭:৩০ নাগাদ মাসির ফোন ...

Read More »

গরিব একটা ছে’লের সাথে একই গ্রামের একটি গরিব মেয়ের বিয়ে হয়,অ’তঃপর

গরিব পরিবারের একটি ছে’লের সাথেএকই গ্রামের একটি গরিব মে’য়ের বিয়ে হয়!ছে’লেটার বয়স 24 বছরের মত,আর মে’য়েটার বয়স 18 বছর! বিয়ের পর ছে’লেটা মেয়েটিকে বললেন,তোমা’র কি কোন ইচ্ছে আছে?মেয়েটা বলল, আমা’র ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার বড় আশা ছিল!এরপর ছে’লেটা মেয়েটাকে নিয়ে কোলকাতা চলে আসে।মেয়েটিকে ভা’র্সিটিতে ভর্তি করায়ে লেখাপড়া করায়। ছে’লেটা ভোর ৪ টা ...

Read More »

হৃদয়বিদারক একটি অ’সাধারণ ভালো’বাসার গল্প,কেউ মিস করবেন না

হৃদয়বিদারক একটি অসাধারণ ভালোবাসার গল্প,কেউ মিস করবেন না!একটা ছে’লে একটা মেয়েকে খুব ভালোবাসতো! একদিন মেয়েটা ছে’লেটাকে ছেড়ে চলে যায়, কিছুদিন পর সেই মেয়েটিকে দেখা যায় অন্য একটি ছে’লের সাথে রিকশা করে ঘুরে বেড়াচ্ছে ! অ’তঃপর পূর্বের ছে’লেটি ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়েটার বাসায় যায়, গিয়ে মেয়েটার গালে সজো’রে থাপ্পড় মা’রে ! আর ...

Read More »

এই গল্পটি এই যুগের মানুষের জন্য খুবই প্রয়োজন

এক গ্রামে একজন কৃষক ছিলেন তিনি দুধ থেকে দই ও মাখন তৈরি করে বিক্রি ক’রতেন.. একদিন কৃষকের স্ত্রী মাখন তৈরি করে কৃষককে দিলেন বিক্রি ক’রতে কৃষক তা বিক্রি করার জন্য গ্রাম থেকে শহরের উদ্দেশ্যে রওনা হলেন মাখন গুলো গোল-গোল রোল আকৃতিতে রাখা ছিল যার প্রত্যেকটির ওজন ছিল ১ কেজি করে.. ...

Read More »

বৃ্দ্ধাশ্রম থেকে ছেলেকে লেখা বাবার চিঠি, পড়লে চোখের জল ধরে রাখতে পারবেন না

তদরিদ্র জন্মদাতা তোমার চাহিদা তো দূরের কথা মৌলিক চাহিদাও সম্পূর্ণভাবে পূর্ণ করতে পারেনি কিন্তু তুমি তোগরীব নও। সুতরাং ছেলে-মেয়ের কোন শখ যেন অপূর্ণ না থাকে। তোমাদের দোয়ায় আমিও অনেক ভালো আছি। পাশের রুমের গণি মিয়া আমার সূখ দেখে ঈর্ষা করে কেননা তুমি প্রতি বছর দু’ইবার আমার কাছে ছুটে আস। তোমার ...

Read More »

ডা’স্টবিনে ফে’লে দেওয়া শিশু ২৫ বছর পর খুঁ’জে নিল তার মাকে

ডা’স্টবিনে ফে’লে দেওয়া শিশু ২৫.. – ফুটফুটে এক শিশু ধী’রে ধী’রে বাবা- মা এর আদরে বড়ো হয়ে উঠে। তারপর তরুণ বয়সে জানতে পারলো তার জীবনের এমন এক বাস্তবতা তা পা’ষণ্ড মানুষকেও শীতল করে দেয়। তার জীবনের নাটকীয়তা সিনেমা বা গল্প কেও হা’র মানায়। ১৯৯৯ সালে ২১ শে নভেম্বর ক্যালি ফোর্নিয়ার ...

Read More »

ক্লাস থ্রি পর্যন্ত পড়া এই ঘুগনি বিক্রেতাকে নিয়ে পি.এইচ.ডি করছেন ৫ জন; জেনে নিন কে ইনি

ছোটবেলায় অকালে বাবাকে হারিয়ে ছেদ পড়েছিল শিক্ষায়, যে স্কুলে পড়তেন সেখানেই করতেন রান্নার কাজ, পরবর্তী কালে খোলেন ঘুগনির দোকান; কিন্তু এর বাইরেও রয়েছে তার পরিচয়, তিনি পদ্মশ্রী প্রাপক জনপ্রিয় কবি। হলধর নাগের (haladhar nag) জীবন কাহিনি আপনাকে অনুপ্রাণিত করবেই। পড়নে সাদা ধুতি ও কুর্তা। পিঠ পর্যন্ত লম্বা তেলজবজবে চুল। পায়ে ...

Read More »

স্বামী ক’রোনায় মা’রা যাওয়ার আগে স্ত্রীকে শেষ চিঠিতে লিখে গেলেন এই কথা,স্ত্রী চিঠি খুলে চ’মকে গেলেন

ক’রোনাভাইরাস সারা বিশ্ব জুড়ে মৃ’ত্যুর কারণ হয়ে উঠেছে। শত শত জীবন কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা গেছেন এক 32 বছর বয়সী আমেরিকান এযুবকটি এক মাস ধরে ক’রোনার সাথে লড়াই করছে। তবে শে’ষ লড়াইয়ে তিনি জিততে পারেননি। স্ত্রীকে মৃ’ত্যুর খবর দেওয়া হয়েছিল। স্ত্রী শেষবারের জন্য স্বামীকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে ...

Read More »

কুকুর দেখলেই জড়িয়ে ধরে দুধ পান করে শিশুটি! কারন জানলে চোখের জ্বল আটকাতে পারবেননা!

ফখরুদ্দীন। বয়স সাত। স্থানীয়দের কাছে ফখরা নামে বেশ পরিচিত। আলোচিত হয়েছে কুকুরের সঙ্গে সঙ্গ দিয়ে। আজ নয়, জ’ন্মের ছয় মাস বয়স থেকেই কুকুরের সঙ্গে ওঠাবসা তার।শুধু ওঠাবসাই নয়, কুকুরের দু’ধ পানে ফখরার বেড়ে ওঠা। অনাদরে থাকা ফখরা কুকুরের মাতৃস্নেহেই বেড়ে উঠছে। আবাল্য মেশামেশিতে অবুঝ প্রাণির সঙ্গে এখন তার নাড়ির বন্ধন। ...

Read More »

মা মা’রা যাওয়ার কিছু দিন পর, মায়ের ঘর পরিষ্কার করতে গিয়ে মায়ের হাতের লেখা একটি চিঠি পায় তার একমাত্র ছেলে

মা মা’রা যাওয়ার কিছু দিন পর মায়ের ঘর পরিষ্কার করতে গিয়ে মায়ের হাতের লেখা একটি চিঠি পায় তার একমাত্র ছেলে।চিঠিতে লেখা ছিল,খোকা এই চিঠি যখন তোর হাতে পড়বে তখন আমি তোর কাছ থেকে অনেক দুরে চলে যাবো যেখান থেকে কেউ কোনো দিন ফিরে আসে না।খোকা তোর অনেক কথাই মনে নেই ...

Read More »
You cannot copy content of this page