সম্পর্ক ভালো রাখতে একটু স্বার্থপর হয়ে যে কাজগুলো করা উচিত!

ভালোবাসার ক্ষেত্রে কিছুটা স্বার্থপর হওয়া কিন্তু জরুরি। একটা সম্পর্ক খুব নিখুঁতভাবে চালিয়ে যাওয়া কিন্তু সকলের পক্ষে সম্ভব হয় না। তবে কিছুটা স্বার্থপর না হলে সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া দুষ্কর হয়ে পড়ে। নারী মানেই মমতা। তাই একটা সম্পর্কে মেয়েদের টান থাকে সবচেয়ে বেশি।

তাই তারা প্রথম থেকেই ত্যাগে জড়িয়ে পড়ে কিন্তু এভাবে সম্পর্কের জন্য নিজের সব আশা, চিন্তা হারিয়ে ফেলা উচিত নয়। এতে করে নিজেকেই হারিয়ে ফেলে অনেকে। তাই সম্পর্কে কখন না বলা জরুরি তাও জেনে রাখা উচিত। আসুন জেনে রাখা যাক সে বিষয়ে-

১) নিজের প্রেমে পড়ুন:- প্রত্যেক মানুষ নিজেকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসে, এটাই স্বাভাবিক। যদিও নারীরা পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সুখী করতেই বেশিরভাগ সময়টা ব্যয় করে। নিজের সুখ তো আর জলাঞ্জলি দিলে চলবে না, কারণ নিজে সুখী না থাকতে পারলে অন্যদের সুখী করে তোলা কঠিন হয়ে পড়বে। আর নিজের ভালো থাকার চাবিটা আপনার নিজের হাতেই রয়েছে। তাই সময়, আবেগ এবং প্রাণশক্তিতে কিছুটা বিনিয়োগ দরকার। সম্পর্কে সঙ্গীর পাশাপাশি নিজের দিকেও সমান খেয়াল দেওয়ার চেষ্টা করুন।

২) নিজের ‘না’ এর মূল্য রাখবেন:– অনেক সময়ই তো মতামত দিতে হয়। নিজের পছন্দ-অপছন্দের মূল্য রয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, মেয়েরা তার মতামত বাস্তবায়িত করতে পারে না। বাধা আসে এবং তা মেনেও নিতে হয় কিন্তু এবার ঘুরে দাঁড়ান। সম্পর্কে নিজের মতামতকে গুরুত্ব দিন। যেটা আপনার ‘না’, তা যেন ‘না’ হিসেবেই গৃহীত হয় সেদিকে মন দিন।

৩) ক্যারিয়ার গুরুত্বপূর্ণ:- আপনার সঙ্গী কত আয় করেন তা গুরুত্বপূর্ণ নয় কিন্তু আধুনিক সমাজে নারীদের অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়া দরকার। তাই নিজের ক্যারিয়ারের প্রতি গুরুত্ব দিন। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে স্বার্থপর হোন। এমনটাই মনে করে বিশেষজ্ঞরা। একবার স্বাবলম্বী হয়ে যখন পরিবার চালাতে নিজে এগিয়ে যাবেন, তখন দেখবেন আপনার গুরুত্ব কতটা বেড়ে গেছে।

৪) নিজেকে কিছু সময় দিন:- প্রত্যেক মানুষের একান্ত নিজের সময় দরকার আছে। এটা যে কেবল পুরুষরাই পেতে পারে তা নয়। নারীদেরও দরকার। সন্তান দেখাশোনার দোহাই দিয়ে তাই এ সময় কেড়ে নিলে চলবে না। নিজের একান্ত সময় আলাদা করে উপভোগের সুযোগ তৈরি করুন। এ বিষয়ে ছাড় দেবেন না।

৫) নিজের লেন্সে গোটা পৃথিবী:- নারী বলতেই যে চুপচাপ থাকতে হবে তা কিন্তু নয়। জীবনে অভিজ্ঞতা লাভের কোনো সুযোগ হাতছাড়া করবেন না। নিজের ক্যামেরার লেন্সে গোটা দুনিয়া দেখার চেষ্টা করুন। বিয়ের পর এবং বয়স হলে এ বিষয়গুলো উপলব্ধি হবে। সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে নিজের মতামতকেই বেশি প্রাধান্য দেবেন। সম্পর্কে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করার মাস্টারপ্ল্যানটা নিজেরই করতে হবে।

পোষ্টটা কেমন লেগেছে সংক্ষেপে কমেন্টেস করে জানাবেন৷ T= (Thanks) V= (Very good) E= (Excellent) আপনাদের কমেন্ট দেখলে আমরা ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই।

Check Also

সারা দিন ধরে আধ ঘন্টা অন্তর অন্তর দু চুমুক করে গরম জল পান করুন তারপর দেখুন কী হয়!

জল খেলে প্রাণ থাকবে…একথা তো সবারই জানা। কিন্তু একটু ছেঁকে দেখলে জানতে পারবেন, জলের প্রকৃতি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *