Monday , 14 October 2019

বিয়ের পোশাকেই মাছ ধরা, জিম যাওয়া, কারণ জানলে স্যালুট করবেন এই মহিলাকে

দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডের বাসিন্দা ট্যামি হল (৪৩)। মাছ ধরা, ফুটবল ম্যাচ দেখা বাজিমে যাওয়ার সময় একটি বিশেষ পোশাক পরেই বার হন। সেটি তাঁর বিয়ের পোশাক। পরিবেশ সচেতন ট্যামির এমন কাজের পিছনে রয়েছে একটি মহান উদ্দেশ্য। আর তাঁর এই উদ্দেশ্য প্রভাবিত হয়েছে ভারতের দ্বারা।

ট্যামি ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়া থেকে ভারত ভ্রমণে আসেন। ভারতের নানা জায়গায় ঘুরে দেখেন, মানুষের সঙ্গে কথা বলে, তাঁদের জীবনযাত্রার মান বোঝার চেষ্টা করেন। ট্যামি জানিয়েছেন, ‘ভারতে ঘোরার পর আমার উপলব্ধি হয়েছে সামাজিক ভাবে আমরা কত বেশি সুযোগ সুবিধা ভোগ করি।’ তারপরই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, গোটা একটা বছর তিনি নতুন কোনও পোশাক, জুতো কিনবেন না।

ট্যামি সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, ২০১৮ সালে তাঁর বিয়ে হয়। ফলে বিয়ের প্রস্তুতি শুরু হয়ে যাওয়ায় তাঁকে নতুন কিছু পোশাক কিনতে হয়। বিয়ের দিন পরার জন্য বিশেষ পোশাকটির জন্য তাঁকে ৯৮৫ পাউন্ড (ভারতীয় মুদ্রায় ৮৬ হাজার টাকা) খরচ করতে হয়। ফলে তাঁর পণ ভঙ্গ হয়ে যায়। কিন্তু তিনি তাঁর প্রতিজ্ঞা থেকে সরে আসতে রাজি ছিলেন না।

২০১৮ সালে বিয়ের পোশাকের জন্য এত অর্থ খরচ করার পর ট্যামি সিদ্ধান্ত নেন, এরপর আগামী এক বছর তিনি আর কোনও পোশাক কিনবেন না। যেমন ভাবা তেমন কাজ। ২০১৮ সালে অক্টোবর বিয়ের পর থেকে এখনও পর্যন্ত নতুন কোনও পোশাক কেনেননি ট্যামি হল। শুধু তাই নয়, তিনি ভাবেন একটা পোশাক যেটা শুধু কয়েক ঘণ্টার জন্য পরতে হবে তার পিছনে এত খরচ করা মানে অর্থের অপচয়। তাই তিনি সিদ্ধান্ত নেন,তাঁর বিয়ের সাদা রঙের সুন্দর পোশাকটি ব্যবহার করবেন, সব জায়গায় পরে যাবেন। যার ফলে একটি বার্তাও যাবে সবার কাছে, ‘চাইলে নতুন নতুন পোশাক না পরেও স্বাভাবিক জীবন কাটানো যায়’।

শুধু প্রত্যেক দিনের কাজের জন্যই নয়, ট্যামি এই পোশাকেই বিদেশ ভ্রমণও করেছেন। ট্যামি হল নিউজিল্যান্ডের হবিটনে পাবলিক ট্রান্সপোর্টেও ঘুরেছেন তাঁর বিয়ের পোশাক পরেই। এবার তিনি পরিকল্পনা করছেন, আইসল্যান্ডেও যাবেন তাঁর বিয়ের পোশাক পরেই।

Check Also

চিকিত্সায় সম্পূর্ণ নির্মূল হল এইডস! আশার আলো দেখাচ্ছে নতুন চিকিত্সা পদ্ধতি

এইডস্ নিরাময়ের গবেষণায় এক ধাপ এগোলেন বিজ্ঞানীরা। ইঁদুরের দেহ থেকে সম্পূর্ণভাবে এইচআইভি ভাইরাস দূর করলেন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *