Monday , 14 October 2019

বাইকে সামান্য পরিবর্তন করার ফলে আপনিও পেতে পারেন ১ লিটার পেট্রোলে ১৫৩ কিলোমিটার যাবার সুযোগ…

উত্তরপ্রদেশের এক যুবক এমন কাজ করলো যে তার বাইক এক লিটার পেট্রোলে ১৫৩ কিলোমিটার এভারেজ দিতে পারে। আর আপনার বাইক দেয় মাএ ৫০ কিলোমিটার। তাহলে সেই হিসেবে এটি তিনগুন হয়ে গেল।

আপনার হয়তো বিশ্বাস হবে না, কিন্তু এটি সত্যি। এমন একটি পরিবর্তন করে রাতারাতি সব বদলে গেলো। এমনকি উত্তরপ্রদেশ Counseling For Science and Technology এর সাথে সাথে এক রাষ্ট্রীয় University এটিকে সঠিক বলেছেন।

মাএ কিছু টাকা খরচ করেই প্রতি এক লিটারে ১৫৩ কিমি এভারেজ পাওয়া যাবে। কিন্তু কি করে। আসুন সেটাই জানি।

কে সেই ব্যক্তি –

ইনি হলেন উত্তরপ্রদেশের কৌশাম্বী জেলার গুদড়ী গ্রামের বাসিন্দা বিবেক কুমার পটেল। বাইক ইন্জিন নিয়ে অনেকদিন ধরে কাজ করছিলেন আর আজ তিনি সফলতা পেয়েছেন।

কি করেছেন –

বাইকের সামান্য কিছু বদল করেই এভারেজ ১৫৩ কি.মি প্রতি লিটার করে দেন। উনি যেকোনো বাইকের ফেরবদল করে ৩০ থেকে ৪০ কি.মি এভারেজ বাড়িয়ে দিতে পারেন।

দুটি সংস্থা দ্বারা প্রমাণিত –

নবভারত টাইমসের অনুসারে এটি একটি ব্যবস্থা নয় বরং একটা টেকনিক যা একটু ফের বদল করা হয়েছে। কারন এটি কে UttarPradesh Counseling of Science and Technology আর Allahabad এর Motilal Nehru National of Institute প্রমাণ করেছেন।

বুদ্ধি টিকে মান্যতা দেওয়া হয়েছে –

রিপোর্ট অনুসারে উত্তরপ্রদেশ কাউন্সিল এই আবিষ্কারকে হাতে কলমে প্রমাণ করার জন্য Motilal Nehru National Institute of Technology এর Mechanical Engineering Department এ টেস্টিংও করিয়েছেন। আশ্চর্যভাবে সেটি সঠিক হয়েছে।

কি সেই টেকনিক –

এই টেকনিকে শুধু কার্বোরেটরকে বদলাতে হয়। বিবেক বাইকের কার্বোরেটর বার করে নিজের বানানো কার্বোরেটর লাগিয়ে দেয়। তারপরই তার মাইলেজ বেড়ে যায়। এতে মাএ ৫০০ টাকা খরচ হয়। রিপোর্ট অনুসারে বিবেক কার্বোরেটর কে সেট করে দেয়।

পেটেন্টের জন্য আবেদন –

UPCST এই বুঝিটিকে পেটেন্টের জন্য আবেদন করেছেন। পেটেন্ট হওয়ার পরই এটি বাজারে ছাড়া যাবে আর সবাই ব্যবহার করতে পারবে।

এরপর কি হতে পারে –

এটি পেটেন্ট পেয়ে গেলে বাইক কম্পানি এটি কিনে নতুন বেশি মাইলেজ সম্পন্ন বাইক বানিয়ে বাজারে আনলে পেট্রোল কম খরচ হবে। ২০১৫ এর গণনা অনুসারে ১৫ কোটি বাইক ভারতে আছে। আর ভাবুন এক লিটার পেট্রোলে তখন বাইক চললে কত পেট্রোল বাঁচবে আর দাম ও কম হবে।

Startup Project তৈরী হলো –

কাটারায় অবস্থিত Shree Mate Vaisnab Devi University এর Technology Business Innovation Center বিবেকের এই আবিষ্কার কে startup হিসেবে রেজিস্টার করেছে। এর জন্য center থেকে ৭৫ লক্ষ টাকার স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।

ক্ষমতার কোন অন্তর হয় না –

মিডিয়া রিপোর্টস অনুসারে UPCST এর Joint Director বলেছেন যে এতে পেট্রোল কম লাগবে আর ক্ষমতা পরিবর্তনও হবে না।

কি করেন বিবেক –

বিবেক রিপোর্টারদের বলেছেন বাইকে আর জেনারেটরের গতি বাড়াতে এই ব্যবহার করতে চান। এইজন্য তার ২ বছর লেগেছে।

Check Also

হাঁটলেই চার্জ হবে মোবাইল! অভিনব আবিস্কার দুই ভারতীয় ছাত্রের! হইচই গোটাদেশ জুড়ে

বর্তমান সমাজে মোবাইল ফোন একটি গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্র। মোবাইল ছাড়া আমরা আমাদের একটা দিনও কল্পনা করতে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *