Saturday , 20 July 2019

তীব্র গতিতে ধেয়ে আসছে উল্কাপিণ্ড, নিশ্চিহ্ন হয়ে যাওয়ার পথে পৃথিবী, যা বলছেন বিজ্ঞানিরা…

বেশ কয়েক বছর আগে ২০১২ সালে পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার একটা খরব উঠেছিল। তাই নিয়ে সিনেমাও তৈরি হয়েছিলো, যেখানে দেখানো হয়েছিলো কি ভয়ানক পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে চলেছি আমরা। বিগত কয়েকদিন আগে মহাকাশ স্যাটেলাইটে ধরা পরেছে আরেক উল্কা। যা ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে এবং আর মাত্র কয়েক বছরের মধেই হয়ত এসে আছাড় খাবে পৃথিবীতে।

পৃথিবী ধ্বংস হবে এই ধারনা আরও সুপ্রতিষ্ঠিত হওয়ার আর একটা কারন হল প্রাচীন মায়া সভ্যতার ক্যালেন্ডার ২০১১ এর পর আর অগ্রসর হয়নি এবং এই ক্যালেন্ডারের সাথে ২০১১ পর্যন্ত সমস্ত দিন ক্ষণের উল্লেখ পাওয়া যায়, কিন্তু তা এই পর্যন্তই সীমাবধ্য।

আবার পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা। তার কারন এক বিশাল উল্কা পিণ্ড তীব্র গতিতে এগিয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে এবং তা আগামি আট বছরের মাথায় পৃথিবীতে এসে আছড়ে পড়বে। যদি এর এই পরিমান আয়তন বজায় থাকে তবে পৃথিবী সম্পূর্ণ বিনষ্ট হয়ে যাবে।

এটা প্রথম সবার সামনে নিয়ে আসে সেন্টার ফর নিয়ার আর্থ অবজেক্ট শাখার ম্যানেজার ‘পল চডাসাই’। তার পরই নাসা এর ওপর গবেষণা শুরু করে। ২০১৯ পিদিসি নাম দেওয়া হয় এটার। এর আকার প্রায় চারশো বর্গ ফুট বা তারও বেশি বলে বিজ্ঞানীদের অনুমান।

বিগত কয়েকদিন ধরে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে সারা বিশ্ব জুড়ে। চিন্তা এবং আতঙ্ক দুটো এক সাথে ভীর করেছে মানুষের মাথায়, ফলে এক বিচ্ছিরি অবস্থার সম্মুখিন জগতবাসি।

কিন্তু এখন আবার বিজ্ঞানীরা বলছেন যে এই আছড়ে পরার ব্যাপারটা এখন একটা অনিশ্চিত পর্যায়ে রয়েছে। এই উল্কা পিণ্ডটি পৃথিবীতে আছড়ে পরতেও পারে আবার নাও পারে। এতো দিন মহাকাশে ক্ষয় হতে হতে সেটি এতটাই ছোট হয়ে যাবে যে তাতে একটি শহর খুব বেশি হলে আঘাত পাবে, এইটুকুই মাত্র।

তাই ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা এই যে মহাকাশে থাকাকালিনই যেন এই উল্কা পিণ্ড বা অ্যাস্টেরয়েড যেন ক্ষয় হতে হতে খুবিই ছোট হয়ে যায় বা চিরতরে বিলীন হয়ে যায়। পৃথিবীর ওপর যেন কোন কিছুই আছড়ে না পড়ে।

আপনার কাছে পোষ্ট টি কেমন লেগেছে সংক্ষেপে কমেন্টেস করে জানাবেন ৷ T=(Thanks) V= (Very good) E= (Excellent) আপনাদের কমেন্ট দেখলে আরো ভালো ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই।

Check Also

বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন ‘মিনারেল ওয়াটার’, রইল সহজ উপায়

জল তেষ্টার তো আর সময়-অসময় নেই! কিন্তু, বাড়ির বাইরে জল খেতে গেলে সাবধানতা বজায় রাখতেই ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *