চুল পড়ার হাত থেকে সম্পূর্ণ মুক্তি পান.. আর কোনোদিন টাঁক পড়বে না..ঘড়োয়া উপার

চুল, চুল আমাদের সৌন্দর্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। চুল না থাকলে মানুষের সৌন্দর্যই অর্ধেক হয়ে যায়। তো সেই চুলকে পড়ার হাত থেকে বাঁচানোর জন্য আমরা কত কিছুই না করি। কিন্তু তাতে অনেক সময়ই কোনরকম কাজ হয়না। তো আজ আমরা এই প্রতিবেদনে জানবো কিভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে আপনি চুল পড়ার হাত থেকে সম্পূর্ণ রুপে নিস্তার পেতে পারেন।

আজ আমরা জানবো এমন পাচটি ফল বা সবজির নাম যেগুলোর রস যদি আপনারা খেতে পারেন বা চুলে মাখতে পারেন তাহলে আপনার চুল পড়ার হাত থেকে ১০০ শতাংশ নিশ্চিত বেঁচে যাবেন এবং পাবেন ঘন ও সিল্কি সুন্দর চুল। আসুন জেনে নিই

১। পেঁয়াজের রসঃ পেঁয়াজের রস চুলের গোড়ার জন্যে সবচেয়ে ভালো সবজি। পেঁয়াজের রসের মতো এতো ভালো চুলের গোড়ার ওষুধ নেই। পেয়াজ সিদ্ধ করে তার থেকে রস বের করে চুলের গোড়ায় মাখলে চুলের গোড়া শক্ত হয় এবং চুল সিল্কি হয়।

২। গাজরের রসঃ গাজরে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও মিনারেলস যেটা চুলের গোড়ার জন্যে এক মহৌষধী। তাই গাজরের রস মাথায় মাখতে পারলে মাথার চুলের গোড়া খুবই শক্ত হয় সাথে সাথে চুল ঘন ও লম্বা করে তোলে।

৩। শশার রসঃ শশার রস মাখলে মাথার চুল পড়া অবিস্মরণীয় ভাবে কমে যায় আর সাথে সাথে নতুন চুল উঠতেও সাহায্য করে এবং চুল ঘন ও লম্বা হতেও অনেক সাহায্য করে।

৪। আমলকির রসঃ আমলকি তে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, আর আমরা জানি যে ভিটামিন সি আমাদের চুলের জন্যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ। তাই যদি আমলকি খেতে পারেন বা আমলিকর রস মাথায় মাখতে পারেন তাহলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে, নতুন চুল গজাবে সাথে সাথে চুল ঘন ও সিল্কিও হবে।

৫। আদার রসঃ আদা, বিভিন্ন রোগের ওষুধ হিসেবে আদার বিকল্প নেই। চুল পড়া তেও আদার বিকল্প নেই। আদার রস বের করে চুলের গোড়ায় মাখতে পারলে চুল পড়া কমে। নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করে।

পোষ্টটা কেমন লেগেছে সংক্ষেপে কমেন্টেস করে জানাবেন৷ T= (Thanks) V= (Very good) E= (Excellent) আপনাদের কমেন্ট দেখলে আমরা ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই।

Check Also

বয়স ৯৬, এই বয়সে পরীক্ষা দিয়ে পেলেন ১০০ তে ৯৮!

কথায় আছে, শেখার বয়স নেই। উপযুক্ত প্রমাণ কাত্যায়নী আম্মা। কিন্তু কেন? মাত্র ৯৬ বছর বয়স। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *