Sunday , 5 April 2020

এই পাঁচটি জিনিস ঘরে রাখুন অবশ্যই, মা লক্ষী আপনার ওপর প্রসন্ন হবেন,হবেন অর্থবান

চরম অর্থনৈতিক উন্নতির সাক্ষী হতে ঠাকুর ঘরে এই পাঁচটি জিনিস রাখুন আর তার পর নিজেই সেই ফল দেখুন। জীবনে চলতে গেলে আমাদের প্রতিটা পদক্ষেপে টাকার প্রয়োজন। টাকা ছাড়া এই দুনিয়ায় কিছু ই নেই। তাই আমরা সবাই চাই আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো হোক। তাই আজকে এমন কিছু মন্ত্র র কথা বলছি যাতে করে খুলে যাবে আপনার ভাগ্যের পথ। যা মেনে চললে দেখবেন আপনার পকেট তো ফাঁকা হবেই না উপরন্তু উন্নতি হবে চোখে পড়বার মতোন।

হিন্দুধর্মের উপর লেখা কয়েকটি বই থেকে আমরা জানতে পারি যে এই পাঁচটি জিনিস ঠাকুর ঘরে রাখলে মা লক্ষ্মী সন্তুষ্ট হন এবং আপনার চলার পথে সমস্ত বাধা সরে যাবে। আপনার কর্মজীবনে ও খুব উন্নতি করবেন।

তাহলে জেনে নিন কি কি: –

১. ঘন্টা। ঠাকুর ঘরে পেতলের তৈরি ঘন্টা রাখা খুবই শুভ। কারণ পূজার সময় ঘন্টার শব্দে সমস্ত রকম অপশক্তি অর্থাৎ নেগেটিভিটি দূরে চলে যায়। বাড়িতে বাস হয় পজিটিভ এর্নাজির। সেই সঙ্গে মনের আনন্দ ও অন্তরের জীবাণুরা মারা যায় ফলে সুখ শান্তির পথ যে প্রশস্ত হয় তা কিন্তু নয় তার সাথে সাথে শরীরে রোগের থেকে ও মুক্তি পাওয়া যায়। প্রসঙ্গত অনেক গবেষণায় দেখা গেছে ঘণ্টার শব্দে মস্তিষ্কের ভেতরে এমন কিছু পরিবর্তন হয় যেটাতে রাগ, দুঃখ, অভিমান একটু একটু করে কমতে শুরু করে এবং ব্রেনের পাওয়ার ও বৃদ্ধি পায়।

২. ছোটো কলসি। হিন্দুশাস্ত্র অনুসারে একটি ছোট কলসির গায়ে সিঁদুর লাগিয়ে সেটা যদি ঠাকুর ঘরে রাখা হয় তাহলে অর্থনৈতিক উন্নতি অনিবার্য। তবে যদি কলসির সাথে আটটি ছোটো পদ্ম রাখা যায় তাহলে তো কোনো কথায় নেই।

৩.স্বতিকা চিহ্ন। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে ঠাকুরের ছবির পাশে ছোটো একটা মেটালের স্বতিকা চিহ্ন রাখলে পরিবারের প্রত্যেক সদস্য জীবনে উন্নতি সাধন করে। কোনো রকম অর্থনৈতিক সমস্যা দেখা দিলে তা ও তাড়াতাড়ি মিটে যায়।

৪. শঙ্খ। তাড়াতাড়ি অর্থনৈতিক উন্নতির সাধ পেতে চাইলে ঠাকুর ঘরে অবশ্যই শঙ্খ রাখুন। কারণ সমুদ্র গর্ভে সৃষ্টি হওয়া অপূর্ব প্রাকৃতিক উপাদান টি হলো মা লক্ষ্মীর বড় প্রিয়। তাইতো ঠাকুর ঘরে শঙ্খ রাখলে মায়ের মাথার উপর আশীর্বাদ পেতে বেশিক্ষণ সময় লাগে না।

৫. মাটির প্রদীপ। প্রতি দিন পূজোর সময় মাটির প্রদীপে ঘি বা তেলের সঙ্গে ছোটো একটা সলতে জ্বালালে কমতে থাকবে কু শক্তির প্রভাব আর বাড়তে থাকবে সু শক্তির প্রভাব। এর ফলে আপনার দরজায় উন্নতি এসে কড়া নাড়বে। তবে প্রদীপ জ্বালানোর সাথে সাথে প্রদীপের তেলে একটু করে গুড় দিতে ভুলবেন না। এতে আপনার সংসারে উন্নতি ঘটবে। তবে এই সব কিছুর পাশাপাশি আপনাকে মানতে হবে এবং কিছু জিনিস ঠাকুর ঘরের মাটিতে রাখা চলবে না।

তাহলে জেনে নিন সেগুলো কি কি: –

১) শ্রাস্ত্রমতে প্রদীপ, পর

শিবলিঙ্গ, শালগ্রাম শিলা, সোনা, ঠাকুরের মূর্তি, শঙ্খ এগুলো ভুলেও মাটিতে রাখবেন না। এতে করে পিছু নেবে র্দূভাগ্য।আর অগত্যা যদি রাখতে হয় তবে পরিস্কার কাপড়ের উপর রাখবেন এতে করে কোনো ক্ষতি হবে না।

২) রবিবারে নৈব নৈব চঃ। রবিবারে মুসুর ডাল, আদা, কোনো লাল রঙের খাবার খাওয়া উচিত নয়। কেনো এমন বিধান জানা নেই তবে এমন করলে সংসারে সুখ শান্তি বজায় থাকে।

৩) দানের নিয়ম। কোনো বিশেষ দিনে টাকা বা জামাকাপড় দানের কথা ভাবলে তাহলে সেদিন ই করবার চেষ্টা করুন। তা না করলে আপনার ক্ষতি হতে পারে।

৪) বাইরে থেকে এসে পা ধোওয়া মাস্ট। কারণ এমন টা মনে করা হয় জীবাণু ও নেগেটিভ এনার্জি পায়ে পায়ে বাড়ির ভেতর প্রবেশ করে যা আমাদের জন্য একদম শুভ নয়। এই গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলি বন্ধুদের জানান এবং শেয়ার করুন আপনার মূল্যবান বক্তব্য কমেন্ট বস্কে জানান। ধন্যবাদ।

Check Also

মা সন্তোষী মা এই ৬ টি রাশির ব্যক্তিদের ভাগ্যের উন্নতি করতে চলেছেন,সফলতা আসবেই আসবে এবং আয় বৃদ্ধি পাবে।

মা সন্তোষী এই ৬ টি রাশির ব্যক্তিদের ভাগ্যের উন্নতি করতে চলেছেন,সফলতা প্রাপ্ত হবে এবং আয় ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *