অপারেশন থিয়েটারে সবাই নীল বা সবুজ পোশাক পরেন কেন জানেন?

আপনি কি কখনও সজ্ঞানে অপারেশন থিয়েটারে ঢুকেছেন? এ প্রশ্নের জবাবে অনেকেই বলবেন ‘হ্যাঁ’। কিন্তু, যাদের উত্তর ‘না’, তারাও চলচ্চিত্র ও বিভিন্ন ডেইলি সোপের বদৌলতে অপারেশন থিয়েটার ভেতরের পরিবেশ কেমন হয় সেটা দেখেছেন। তাই এ সম্পর্কে অবগত আছেন।

অপারেশন থিয়েটার মানেই মাথার উপর ছাদ থেকে ঝুলে থাকা বড় বড় উজ্জ্বল আলো, অপারেশন টেবিলের পাশে রোগীর মাথার কাছে কয়েকটা বড় মেশিন, মনিটর আর সবুজ বা নীল পোশাক পরা একদল ডাক্তার। সবুজ বা নীল পোশাক মানে, একেবারে মাথার সার্জিক্যাল ক্যাপ, মুখের মাস্ক থেকে শুরু করে

গায়ে চড়ানো অ্যাপ্রন পর্যন্ত সবই এক রঙের। এমনকি, রোগীর বিছানার বা গায়ে দেওয়া চাদর, সবই হয় সবুজ নয়তো নীল রঙের। কিন্তু, জানেন কেন অপারেশন থিয়েটারের বেশির ভাগ অংশ জুড়ে নীল বা সবুজ রং? এটা কেউ কি কখনও ভেবে দেখেছেন অপারেশন থিয়েটারে কেন নীল বা সবুজ রং-ই ব্যবহার করা হয়?

সবুজ বা নীল রং বাছার নেপথ্যে রয়েছে কিছু বৈজ্ঞানিক কারণ। খবর জিনিউজ। বিশেষজ্ঞদের মতে, সবুজ রং চোখের জন্য উপকারী, নীল রং চোখের পক্ষে আরামদায়ক। আর লাল রং চোখের জন্য ক্ষতিকর। অপারেশন থিয়েটার মানেই ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাঁটা-ছেঁড়া আর রক্ত! দীর্ঘক্ষণ এক টানা লাল রক্ত দেখতে দেখতে অপারেশন থিয়েটারে থাকা চিকিৎসক-নার্সদের চোখ ধাঁধিয়ে যায়, সব জায়গাতেই লালচে ছোপ দেখেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এর জন্য দায়ী অপটিক্যাল ইলিউশন বা দৃষ্টি ভ্রম। এই দৃষ্টি ভ্রমের ফলে অস্ত্রোপচার চালিয়ে যেতে অসুবিধা হয়। তখন চারপাশের ও পোশাকের সবুজ বা নীল রং চোখকে আরাম দেয়। আর অপটিক্যাল ইলিউশন বা দৃষ্টি ভ্রমের প্রভাব প্রশমিত করে।

কিন্তু, কেন লাল রং থেকেই অপটিক্যাল ইলিউশন বা দৃষ্টি ভ্রম তৈরি হয়, সবুজ বা নীল রং থেকে হয় না কেন? বিশ্বের বড় বড় চক্ষু বিশেষজ্ঞদের মতে, মানুষের চোখের কোষ প্রধানত তিন রকম রঙের হয়, নীল, লাল ও সবুজ। চোখের এই রঙিন কোষের সংখ্যা প্রায় ৬০-৭০ লক্ষ যার মধ্যে ৪৫ শতাংশই সবুজ রঙের।

তাই সবুজ রং মানুষের চোখের পক্ষে আরামদায়ক। লাল রঙের কোষের সংখ্যা সবচেয়ে কম থাকায় এই রং একটানা চোখের সামনে থাকলে অপটিক্যাল ইলিউশন বা দৃষ্টি ভ্রমের মতো সমস্যা তৈরি হয়।

পোষ্টটা কেমন লেগেছে সংক্ষেপে কমেন্টেস করে জানাবেন৷ T= (Thanks) V= (Very good) E= (Excellent) আপনাদের কমেন্ট দেখলে আমরা ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই।

Check Also

সারা দিন ধরে আধ ঘন্টা অন্তর অন্তর দু চুমুক করে গরম জল পান করুন তারপর দেখুন কী হয়!

জল খেলে প্রাণ থাকবে…একথা তো সবারই জানা। কিন্তু একটু ছেঁকে দেখলে জানতে পারবেন, জলের প্রকৃতি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *